ভোলা চরসামাইয়া ইউপিতে নিজের ঘর কুপিয়ে কুদ্দুসের পরিবারের নামে মিথ্যা মামলা দায়ের,

আল-আমিন এম তাওহীদ,

ভোলানিউজ.কম,

২০-০৯-২০১৭ইংবুধবার,

 

ভোলা সদর উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ছিফলী গ্রামের বাসিন্দা ফিরোজ (৩০) নামের একব্যক্তি নিজের ঘর কুপিয়ে। পাশ্ববর্তী বাসিন্দা কুদ্দুস নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভোলা সদর মডেল থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে অভিযোগ।

সরেজমিনে জানাযায়, বুধবার সকাল ১০টার দিকে ছিফলী এলাকার বন্ধুজন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ঘর সামনে নির্মাণ করা ঘরটি ফিরোজ কুপিয়ে ভাংচুর করেন বলে জানাযায়। পরে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে নিজেই সার্প বেলেড দিয়ে পোচ মেরে নাটক সাজিয়ে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়।
প্রত্যাক্ষদর্শী বন্ধুজন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসি বলেন, ফিরোজ বাসা থেকে দা নিয়ে এসে নিজের ঘর কোপায় এবং সবার সামনে সার্প বেলেড দিয়ে শরিরে আঘাত করেন। এতটুকু আমরা নিজ চোখে দেখেছি। ফিরোজ যে ঘরটি জমির উপর নির্মাণ করছে তা আমাদের এলাকার কুদ্দুসের জমি। ফিরোজ ক্রয়সুত্রে জমি দাবী করে আসছে। জমির প্রকৃত মালিক কুদ্দুস। ফিরোজ কুদ্দুসের কাছ থেকেও জমি ক্রয় করেনি, কালামের কাছ থেকে ক্রয় করেছে জমি ফিরোজ। কিন্তু ফিরোজ কিভাবে জোর করে জমিতে আসেন তা আমরা জানি না।

এবিষয়ে কুদ্দুসের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্কুলের সামনে জোর করে ফিরোজ দুলাল দুই ভাই আমার ভোগদখলীয় সম্পত্তিতে ঘর নির্মাণ করছে। এ জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলে। আজ বুধবার সকালে ফিরোজ বাসা থেকে দা নিয়ে এসে নির্মাণ করা ঘরটি কোপাইছে ও নিজের কবজির উপর আঘাত করে নাটক সাজিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে এবং থানায় একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে আমার নামে ও পলাশের নামে। ফিরোজ ঘরটি কুপিয়েছে তা এলাকাবাসি ও স্কুলের কোচিং এর ছাত্ররা দেখেছে।
এবিষয়ে ফিরোজের বড় ভাই দুলালের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কুদ্দুস ও পলাশ দুইজনে মিলে আমার ছোট ভাই ফিরোজের ঘর কুপিয়েছে। বৃহস্পতিবার পলাশ ও কুদ্দুস হুমকি দামকি দিয়েছে।
এবিষয়ে মামলা সম্পর্কে জানতে চাইলে মামলার প্রস্তুতি চলছে।