নাবালিকার ‘বাসর রাত’ গৃহবধূ হলেন নবম শ্রেনির ছাত্রী,

আদিত্য জাহিদ,

ভোলানিউজ.কম,

২৮আগস্ট-২০১৭ইং
ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানার রাব্বানিয়া মাদ্রাসার নবম শ্রেনির ছাত্রী শারমিন আক্তার (১৪) গ্রামীন জন উন্নয়ন সংস্থার এমএলএসএস বাহারের সাথে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে গৃহবধূ হলেন। কাবিন ও বিয়ের বিষয়টি স্থানীয় চরমানিকা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য গোলাম ফারুক নিশ্চিত করেছেন।
গ্রামীন জন উন্নয়ন সংস্থার এমএলএসএস বাহার চাকরী করার সুবাদে শাহে আলম মৃর্ধার নবম শ্রেনির ছাত্রীর সাথে ৪ মাস যাবৎ বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দৈহিক সর্ম্পক গড়ে তোলে। বিষয়টি জানাজানি হলে গ্রামীন জন উন্নয়ন সংস্থার ব্যবস্থাপক বাহার কে অন্যত্র বদলী করার সুপারিশ করেন। বিষয়টি শারমিন জানতে পেরে সোমবার সকাল ৮টার সময় বাহারের অফিসে বিয়ের দাবীতে অবস্থান নেয় এসময় স্থাণীয় লোকজন অফিসের সামনে জড়ো হলে ব্যবস্থাপক সংবাদ পেয়ে মাঠ থেকে অফিসে চলে এসে থানায় এবং বাহারের পিতা মোশারেফ হোসেনকে সংবাদ দেয়। পুলিশ সংবাদ পেয়ে অফিস থেকে বাহার ও শারমিনকে আটক করে দুপুর ২টার সময় থানায় হেফাজতে নেয়। বাহারের পিতা ভোলার বড় চর সামাইয়া থেকে আসতে সময় লাগার কারনে সন্ধ্যার পরে উভয়পক্ষ স্থাণীয় মাদ্রাসার শিক্ষক, সাবেক ইউপি সদস্য সহ তাদের জিম্মায় নিয়ে কাজী অফিসে গিয়ে বিয়ের কাজ সম্পন্ন করে শারমিনের বাসর ঘর সাজিয়েছে বলে স্থাণীয় সুত্র নিশ্চিত করেছেন।
এ ব্যাপারে দক্ষিণ আইচা থানার অফিসার ইনচার্জ হানিফ সিকদার জানান, উভয় পক্ষের অভিবাভক আমার নিকট রাত সাড়ে ৮টার সময় লিখিত দিয়ে দ’জনকে তাদের জিম্মায় নিয়ে যায়।