ভোলায় ছাত্রলীগ সম্পাদক ধর্ষণ করলেন নবম শ্রেনীর ছাত্রীকে অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি,

ভোলানিউজ.কম,

২৬আগস্ট-২০১৭ইং শনিবার,

ভোলায় আব্দুর রব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ভোলা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদ অভিযোগ ‍উঠেছে। ধর্ষিতা বিচারের দাবীতে জেলা আওয়ামীলীগ অফিসসহ বাণিজ্যমন্ত্রী আলহাজ্ব তোফায়েল আহম্মেদ (এমপি) এর কাছে বিচার দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন ধর্ষিতা জানান।

ধর্ষিতা সূত্রে জানাযায়, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদ জোরপুর্বক ধর্ষণ করেন। এরপরে বিভিন্ন মিথ্যার প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে।এমনকি রাতে বাসায় এসেও ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ নিয়মিত ধর্ষণ করতো। ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজের নিয়মিত ধর্ষনে মেয়েটি ২মাসের অন্তঃসত্ব হয়ে পড়েন।

এব্যাপারে ধর্ষিতা আরো বলেন, অামি অন্তঃসত্ব হওয়ার ঘটনাটি রিয়াজ মাহমুদকে জানালে। সে ব্যাপরটি কাউকে বলতে নিষেধ করেছেন এবং আমাকে বিবাহ করবে বলে আশ্বাস দেয় রিয়াজ মাহমুদ। কিন্তু অনেক দিন পার হতে না হতেই তিনি নাটক আর অভিনয় শুরু করে দেয় রিয়াজ। আমার সাথে কথা বলছেনা ফোন ধরছে না। এখন বর্তমানে আমি ২মাসের অন্তঃসত্ব প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

ধর্ষিতা ভোলা সদর উপজেলার ধনিয়া ১নং ওয়ার্ড এর সভ্রান্ত পরিবারের মেয়ে বলেও জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

এবিষয়ে, ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদের বব্যবহৃত মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। জানা যায় তিনি ঢাকায় আছেন।


এদিকে, শনিবার সকালে ভোলা প্রেসক্লাবের সভাপতি/সম্পাদক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ধর্ষিতার পরিবার।


এবিষয়ে ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম চৌধুরী পাপনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। এব্যাপারে আমার কোন মন্তব্য নেই সিনিয়র নেতাকর্মীরা আছেন তারা ব্যবস্থা নিবেন।
এব্যাপারে ভোলা সদর মডেল থানার (ভারপ্রাপ্ত) ওসি মীর খায়রুল কবীরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন পযর্ন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি এবং আমি বিষয়টি জানি না।

এবিষয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, এরকমের কোন ঘটনা ঘটলে ছাত্রলীগ সংগঠনের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

 

(এমএম)