লালমোহনে ‘সেচ্ছাসেবক লীগ নেতার উপর হামলা’ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাট,

হাসান পিন্টু লালমোহন প্রতিনিধি,

ভোলানিউজ.কম,

১৮আগস্ট-২০১৭ইং শুক্রবার,

ভোলার লালমোহনে পাওনা টাকার মিমাংস করাকে কেন্দ্র করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতি বার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার ধলিগৌরনগর ইউনিয়নের মাষ্টার বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, মাষ্টার বাজার এলাকার দফাদার বাড়ীর বিএনপি কর্মী জাকির আওয়ামী লীগ কর্মী আরিফ থেকে টাকা ধার নিয়ে দেই দিচ্ছি করে র্দীঘ দিন যাবৎ ঘুরাঘুরি করে। এক পর্যায়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার সময় মাষ্টার বাজারে জাকিরের কাছে টাকা চাইলে সে হোন্ডার ড্রাইভার ইদ্রিসের নেতৃত্বে শতাধিক বিএনপি’র সন্ত্রাসী ক্যাডার বাহিনী নিয়ে আরিফ এর উপর হামলা করে। ঘটনার মিমাংস করার জন্য ওই বাজারের ব্যবসায়ী ও ধলিগৌরনগর ইউনিয়নের সাবেক সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ হাওলাদার এগিয়ে এলে তার উপরেও হামলা চালায় ভাড়ায় চালিত হোন্ডার ড্রাইভার ইদ্রিসের পালিত বিএনপির ক্যাডার বাহিনী। রিয়াজের উপর হামলা করেই ক্ষ্যান্ত হয়নি ইদ্রিসের ক্যাডার বাহিনী। পরে সকলে মিলে শ্রমিক লীগ নেতা রিয়াজের কীটনাশকের দোকানে হামলা করে ১৫ হাজার টাকার একটি মোবাইল ফোন ও নগদ অর্থসহ প্রায় ৫ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। অন্যদিকে ওই সন্ত্রাস বাহিনী পাশের সিরাজের ফাস্টফুডের দোকানেও হামলা চালিয়ে প্রায় ৫ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। ঘটনার খবর পেয়ে লালমোহন থানার পুলিশ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে আরিফকে থানায় নিয়ে আসে।


রিয়াজ অভিযোগে করে বলেন, আমাদের এলাকার জাকির একই এলাকার আরিফের কাছ থেকে কিছু টাকা ধার নেয়। অনেক বার জাকিরের কাছে ওই টাকা চাইলেও সে দিচ্ছে না। এতে করে গত বৃহস্পতিবার আরিফ জাকিরের কাছে টাকা চাইলে হোন্ডার ড্রাইভার ইদ্রিস এর পালিত বিএনপি’র সন্ত্রাস বাহিনীর সাথে যোগ হয়ে আরিফের উপর হামলা করে। পরে আমি সেখানে তাদের কথা শুনতে গেলে ওই সন্ত্রাস বাহিনী আমার রাজনৈতিক পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমাকে হেয় প্রতিপূর্ন করার জন্য এবং আমাকে রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য হুমকি-ধামকি প্রদান ও হামলা করে। পরে তারা আমার দোকান থেকে একটি মোবাইল ফোনসহ প্রায় ৫ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায়।
রিয়াজ আরো বলেন, এই ইদ্রিস বিভিন্ন সময় আওয়ামী লীগের নামে নানান জায়গায় মিথ্যা অপপ্রচার করে বেড়ায়। এতে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক মাঠ নষ্ট হচ্ছে।