পবিত্র ঈদুল আজহায় কোরবাণীর পশু এবং নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের কোন সংকট হবে না-বাণিজ্যমন্ত্রী

ডেস্কঃ ভোলানিউজ.কম,

১০আগস্ট-২০১৭ইং বৃহ,

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, পবিত্র ঈদুল আজহায় কোরবাণীর পশু এবং পেঁয়াজসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের কোন সংকট হবে না।

মন্ত্রী বলেন, সরকারের বিশেষ উদ্যোগে এখন দেশে পর্যাপ্ত গরু উৎপাদন হচ্ছে। দেশের চাহিদা পূরণে আর গরু আমদানির প্রয়োজন নেই। এছাড়া মিশর থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আমদানিকৃত এ পেঁয়াজ ছাড়ের জন্য চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে এ পেঁয়াজ বাজারে আসবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আজ সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়টির সম্মেলন কক্ষে আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে পেঁয়াজ, রসুন, আদা, গরম মসলাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় একথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ঈদুল আযহার সময়কার চাহিদার পরিমাপে পেঁয়াজ, লবণ, আদা, রসুনসহ সব নিত্য পণ্যের পর্যাপ্ত সরবরাহ ও মজুত রয়েছে।

তিনি বলেন, পেঁয়াজ প্রধানত: প্রতিবেশী দেশ থেকে আমদানি করা হয়। কিন্তু বন্যার কারণে এবার সেখানেও পিঁয়াজের দাম বেশি। এজন্য আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম কিছুটা বেড়েছে।

মন্ত্রী বলেন, আসন্ন ঈদে চামড়া শিল্প এবং ভোজ্য লবণের চাহিদা মেটাতে ৫ লাখ মেট্রিক টন লবণ আমদানির প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। দেশে চালু ২৩২টি লবণ মিলকে ২ হাজার ১৫০ মেট্রিক টন করে লবণ আমদানির অনুমতি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজারের লবণ উৎপাদনকারী ও মিল মালিকরাও রয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যবসাবান্ধব সরকার ব্যবসায়ীদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। সরকারের সহযোগিতায় ব্যবসায়ীরাও বাণিজ্য ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখছেন। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে যাতে কোন পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি না পায়, এ জন্য তিনি ব্যবসায়ী ও সংবাদমাধ্যমসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহবান জানান।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার পেঁয়াজ ও লবণ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে বাংলাদেশ এ ক্ষেত্রেও স্বয়ংসম্পূর্ণ হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি দেশে এখন চাহিদা মোতাবেক বিদ্যুৎ উৎপাদন ও লোডশেডিং বন্ধের কথা উল্লেখ করেন।

সভায় বাণিজ্যসচিব শুভাশীষ বসু, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম লস্কর, আমদানি ও রপ্তানি অধিদফতরের প্রধান নিয়ন্ত্রক আফরোজা খান এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও দফতর, বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বাসস।