ভোলা-৩ আসনে আবারো নৌকা প্রতীককে নির্বাচিত করতে হবে-বাণিজ্যমন্ত্রী

হাসান পিন্টু লালমোহন,

ভোলানিউজ.কম,

৫আগস্ট-২০১৭ইং রবিবার,
ভোলার লালমোহনে এক পথসভায় বাণিজ্যমন্ত্রী আলহাজ¦ তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেছেন, ২০০১ সালে নির্বাচনের পর ভোলা জেলা বিএনপি সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছিল। লালমোহনের প্রত্যন্ত অঞ্চলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপর চলেছিল নির্যাতন-নিপিড়ন। শনিবার লালমোহনে এক পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

লালমোহন লঞ্চঘাট খালের উপর প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যায়ে গার্ডার ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন শেষে লালমোহন বাজারে ভোলা-৩ আসনের এমপি আলহাজ¦ নূরুন্নবী চৌধুরী শাওনের সভাপতিত্বে এক পথসভায় তিনি আরো বলেন, ২০০১ সালে আমি লালমোহন-তজুমদ্দিন আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছি। আমি ভোটে বিজয়ী হলেও মেজর হাফিজ আলম বাজার কেন্দ্রে গুলি করে আওয়ামীলীগ কর্মী খোরশেদকে হত্যা করে ক্যাডার বাহিনী দিয়ে আমার ভোট বাক্স ছিনতাই করে নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা করে। তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন, আমি আশা করি ভোলা-৩ আসনে আবারো নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন মনোনয়ন পাবে। এ আসনে আবারো নৌকা প্রতীককে নির্বাচিত করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি।
সভায় উদ্বোধকের বক্তব্যে এলজিআরডি মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, লালমোহনে আজকের পথসভা জনসভায় রূপান্তরিত হয়েছে। তিনি বলেন, এখানকার সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন এ সভাকে পথসভা বলেছে। এটা যদি পথসভা হয়, তাহলে জনসভাকে কি সভা বলবো? এলজিআরডি মন্ত্রী আরো বলেন, শাওনকে যদি মনোনয়ন দেয়া হয় তাহলে কি আপনারা নৌকার পক্ষে কাজ করবেন। মন্ত্রীর মূখে একথা শুনে সভাস্থলে উপস্থিত লাখো নারী-পুরুষ উল্লাসিত হয়ে উঠে। খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, শাওন আমার মন্ত্রণালয়ে বারবার হামলা করে। এ হামলা লালমোহন ও তজুমদ্দিনের উন্নয়নমূলক কাজের জন্য।
সভায় স্বাগত বক্তব্যে ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও লালমোহন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যখন ক্ষমতায় আসে তখনই ভোলার উন্নয়ন হয়। ভোলার উন্নয়নে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো ক্ষমতায় আনতে হবে। তিনি লালমোহন-তজুমদ্দিনে মেজর হাফিজ বাহিনীর নির্যাতন-নিপিড়নের কথা উল্লেখ করে বলেন, এ লালমোহনে কোন আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী শান্তিতে ঘুমাতে পারেনি। এলাকা ছাড়া করা হয়েছিল প্রত্যেক আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের। বাবা-মায়ের মৃত্যুতে জানাযায়ও অংশ নিতে পারেনি তারা। সেই অশান্ত জনপদে আজ শান্তি বিরাজ করছে।
এরপূর্বে মন্ত্রীদ্বয় লালমোহন পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড লঞ্চঘাট থেকে ৯ নং ওয়ার্ডের মধ্যে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে সংযোগ গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন করেন।
সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কন্যা ড. সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের স্বামী খন্দকার মাশরুর হোসেন মিতু, ডা. হাবিবে মিল্লাত এমপি। এসময় ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাং সেলিম উদ্দিন, জেলা পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন, লালমোহন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিন, পৌরসভার মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের (ভারপ্রাপ্ত) সাধারন সম্পাদক দিদারুল ইসলাম অরুন, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বাদল প্রমূখ।