লালমোহনে রাশিদার ক্রয়কৃত জমি ভূয়া কাজগপত্র বানিয়ে জবর দখল করায় ‘ভূমিদস্যু মোজাম্মেল গ্রেফতার’

মাসুদ লালমোহন প্রতিনিধি,

ভোলানিউজ.কম,

৪আগস্ট-২০১৭ইং শুক্রবার,

লালমোহন পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডে বসবাসকারী ভূমি দস্যু মোজাম্মেল হক গাজী দীর্ঘ বছর ধরে একের জমি অন্যকে জাল জালিয়াতী করে ভূয়া খতিয়ান, নামজারী, ডিক্রী করে বিভিন্ন ব্যক্তিকে অর্থের বিনিময়ে পাওয়ায় দেওয়া মোজাম্মেল হক গাজীর নেশা এবং পেশা বিগত জোট সরকারের আমলে বিএনপির প্রভাব দেখিয়ে লালমোহনে কয়েকটি হিন্দু পরিবারকে বিভিন্ন রকম ভয়-ভীতি জোর পূর্বক জমি দলিল নিয়ে তাদেরকে এলাকা ছাড়া করা এই ধরনের কর্মকান্ড তিনি করতেন। মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, লালমোহন ৮নং ওয়ার্ডের রাশিদা বেগম স্বামী মফিজুল ইসলাম মেহেরগঞ্জ মৌজার ৩৪নং তৌজি, জেএল নং- ১৭, এস এ নং- ৫৬, খতিয়ানে ৩১৫, ৩১৬/৫৪৮ ৩১৫/৫৪৯নং দাগ ভুক্ত ৪৮ শতাংশ জমি এস এ নং- ৫৬, খতিয়ানের রেকর্ডিয় মালিক এলাহী বক্স এর ক্রম ওয়ারীশদের বিক্রী করা জমি লালমোহন সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে ১৩/০২/২০১৪ইং তারিখে ৮৮২, ২৩/১২/১৪ইং তারিখে ৭৪৩২নং সাব কবলা দলিলে মূল খরিদা করিয়া ভোগ দখল করিয়া আসিতেছেন। রাশিদা বেগমের ক্রয়কৃত জমিতে বসত ঘরে ১নং আসামী মুজাম্মেল গাজী ও তার পরিবার সহ বসবাস করিয়া আসিতেছে। রাশিদা বেগম তাদেরকে জায়গা ছেড়ে দিতে বললে তারা এই জায়গা নিজের বলে দাবী করে বিভিন্ন ভূয়া কাগজপত্র তৈরী করে দখল করে রাখে। তাই তাদের বিরুদ্ধে রাশিদা বেগম ০৩/০৮/২০১৭ইং তারিখে মুজাম্মেল গাজী সহ তাহার স্ত্রী রিনা বেগম, ছেলে রাহাদ ও তার আত্মীয় বারেক সহ অজ্ঞাত ৫/৬ জন সহ লালমোহন থানায় জায়গা জবর দখল করার একটি মামলা দায়ের করে। ঐ মামলার পর স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ফয়সালার চেষ্টা করেও ব্যার্থ হয়। ইতিপূর্বে মুজাম্মেল গাজী স্থানীয় কাউন্সিলর সাইফুল ইসলামের নিকট প্রতারণা পূর্বক জাল জালিয়াতির মাধ্যমে দখলের পায়তারা বহাল রাখার লক্ষ্যে দেঃ মাঃ নং- ১৭০/১৯৭০ এর রায় ডিক্রী সহ কতগুলো ভূয়া জালজালিয়াতি পূর্ন কাগজ দাখিল করে গত ১৩/০৩/১৭ইং তারিখে লালমোহস সেটেলমেন্ট অফিসের উপ-সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার হারুন অর রশিদের দেঃ মাঃ নং- ২৮৪/১৯৮০ এর রায় বলে কিছু কাগজ দেখিয়ে ঘরে বসিয়া আদালতের সই স্বাক্ষর জাল করিয়া ভূয়া কাগজপত্র সৃষ্টি করিয়া রাশেদা বেগমের মূল্যবান সম্পত্তি নিজের নামে সেটেলমেন্টে নামজারী করার চেষ্টা করে। সেখানে বাদীর রাশেদা বেগমের কাগজপত্র দেখে সেটেলমেন্ট অফিস থেকে কোন রকম অবৈধ ভাবে কাগজপত্র তৈরী করতে পারে নাই। না পেরে গত ২৭/০৭/১৭ইং তারিখে মুজাম্মেল হক গাজী ৫/৬ জন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়া দা, ছেনি, লাঠি, সোঠা নিয়া রাশিদার ভোগ দখলীয় জমিতে থাকা নারিকেল, সুপারী, কাঠাল, পুকুরের মাছ সহ ১ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। রাশিদাকে প্রকাশ্যে মেরে ফেলার হুমকি দেয় এই ঘটনায় লালমোহন থানায় জি,আর ০২ তাং- ০৩/০৮/২০১৭ইং তারিখে ৪ জনকে আসামী করে অজ্ঞাত কয়েকজন সহ মামলা রুজু করে। এই মামলায় ভূমিদস্যূ মোজাম্মেল হক গাজীকে শুক্রবার গ্রেফতার করে লালমোহন থানা পুলিশ জেল হাজতে প্রেরণ করেন। রাশিদা বেগম স্থানীয় প্রশাসন সহ জমি ফেরৎ পেতে সকলের সহযোগীতা।

এবিষয়ে, লালমোহন থানা (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হুমায়ন কবীর ঘটনার সততা নিশ্চিত হয়ে জানান, আমরা আটক করেছি। এখন আদালতের কাছে সোর্পদ করবো।