চরফ্যাশনে ধৃত ৪ ডাকাত আন্তঃজেলা ডাকাতের সদস্য

আদিত্য জাহিদ চরফ্যাশন থেকে,

ভোলানিউজ.কম,

২আগস্ট-২০১৭ইং বুধবার,

ভোলার চরফ্যাশনের দক্ষিণ ফ্যাশন গ্রামে সাবেক সেনাসদস্য’র বাড়িতে ডাকাতির প্রস্ততিকালে জনতার গণধোলাইয়ের পর পুলিশের হাতে ধৃত ৪ ডাকাতের পরিচয় নিশ্চিত করেছে চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ এনামূল হক।

৪দিনের রিমান্ড মঞ্জুর জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের বরাত দিয়ে চরফ্যাশন থানা পুলিশ জানায়- ডাকাত সন্দেহে আটক ৪ ব্যক্তিদ্ধয় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন থানায় খুন ডাকাতি এবং অবৈধ অস্ত্রসহ কমপক্ষে ৯টি থেকে সর্বোচ্চ ১৫টি মামলার সন্ধান পাওয়া গেছে। পাশাপাশি এই ডাকাত দলের স্থানীয় আশ্রয়দাতা সম্পর্কেও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে তবে মামলার স্বার্থে কিছু তথ্য গোপন রাখা হয়েছে। ডাকাত দলের পালিয়ে যাওয়া সদস্য এবং আশ্রয়দাতাদের গ্রেপ্তাতের অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। বুধবার বরিশালের বাখরগঞ্জ থানা পুলিশ ও পুলিশের বিশেষ শাখার প্রতিনিধি দল গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চরফ্যাশন এসেছেন বলে চরফ্যাশন থানা সূত্র জানিয়েছেন।
আছলামপুর ইউনিয়নের নিবাসী সাবেক সেনা সদস্য’র কাশেম মিলিটারীর পুরান বাড়িতে গত শনিবার ভোর রাতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে জনতার হাতে আটক ৪ ডাকাতের বিরুদ্ধে চরফ্য্শান থানায় মামলা দায়েরের পর চরফ্যাশন আদালতে সোপর্দ করে ৪দিনের রিমান্ড দাবী করলে আদালত মঞ্জুর করলে ডাকাত সদস্যরা এসব তথ্য দেয়। ডাকাতরা জানান, প্রাথমিক পযার্য়ে দেয়া তাদের নাম ঠিকানা তথ্য মিথ্যা ছিল। অফিসার ইনচার্জ প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, বরিশালের বিভিন্ন থানায় যোগাযোগ করার পর প্রেপ্তারকৃত ডাকাতদের প্রকৃত পরিচয় মিলেছে এবং তাদের বিরুদ্ধে বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন জেলায় ডাকাতি,হত্যা ও অস্ত্র মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।
পুলিশের দেয়া তথ্যমতে অভিযুক্ত ডাকাত লিটন কারিকর ওরফে লিটু বরিশালের বাখরগঞ্জ থানার উত্তর কাজলা কাঠি গ্রামে’র মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে। তার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে ৯টি। মামলাগুলো হলো ঝালকাঠি সদর থানার মামলা নং-১৮/১২, বরিশাল’র মেহেন্দীগঞ্জ থানার মামলা নং-৯/১৩ ও মামলা নং ১৩/১৩, বরিশাল এর বাকেরগঞ্জ থানার মামলা নং-৩৮/১৭, জিআর নং-১৯০। মামলা নং-৩৭/১৭, জি আর নং-১৮৯। মামলা নং-৩১/১৭, জি আর নং-১৮৩। মামলা নং-০৭/০৭; জি আর নং-২৩৫। ভোলার চরফ্যাশন থানার মামলা নং-১৫/১৭,জিআর নং-১৬৫/১৭৯চর)। অভিযুক্ত সাইফুল(৩৫) বাখরগঞ্জ থানার বলই কাঠি গ্রামের আমির আলী হাওলাদারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে মামলার সংখ্যা ৯টি। মামলা গুলো হলো: বরিশাল’র বাকেরগঞ্জ থানার মামলা নং-৩১/১৭, জি আর নং-১৮৩। মামলা নং-১২/১৫। মামলা নং-১৯/ জিআর/২১৫/১৬। মামলা নং-২৪/১৪, জি আর নং-২৭৯। বরিশাল’র উজিরপুর থানার মামলা নং-৫/১৩ ও মামলা নং-৬/২৯১/১৩। বিএমপি’র বন্দর থানার মামলা নং-১১/১৫ ও মামলা নং-১২/১৫। এবং ভোলার চরফ্যাশন থানার মামলা নং-১৫/১৭। জিআর নং-১৬৫/১৭৯চর)
অভিযুক্ত খোকন(৩৫) বাখরগঞ্জ থানার বলই কাঠি গ্রামের ইয়াছিন হাওলাদারের ছেলে। তার বিরদ্ধে সবচে বেশী সংখ্যক ১৫টি মামলা রয়েছে। মামলা গুলো হলো: বরিশাল’র বাকেরগঞ্জ থানার মামলা নং-৩৮/১৭; জি আর নং-১৯০। মামলা নং-৮/১৪; জি আর নং-২৯৩। মামলা নং-২৪/১৪, জি আর নং-২৭৯। মামলা নং-৩৭/১৭, জি আর নং-১৮৯। মামলা নং ৩১/১৭, জি আর নং-১৮৩। মামলা নং-১৯ জিআর/২১৫/১৬। মামলা নং-১২/১৫। মামলা নং২০/০৯; জি আর নং-৪১২। মামলা নং-৩৭/০৯; জি আর নং-১৯২। মামলা নং-০৪/০৭; জি আর নং-২৫৬। বরিশাল’র উজিরপুর থানার মামলা নং-৬/২৯১/১৩ ও মামলা নং-৫/১৩। বিএমপি’র বন্দর থানার মামলা নং-১১/১৫। মামলা নং-১২/১৫ এবং ভোলা এর চরফ্যাশন থানার মামলা নং-১৫/১৭,জিআর নং-১৬৫/১৭৯চর)। অভিযুক্ত সবুজ(৩০) বাখরগঞ্জ থানার বলই কাঠি গ্রামের ইয়াছিন হাওলাদারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে ও ৯টি মামলা রয়েছে। মামলাগুলো হলো: বরিশালের বাকেরগঞ্জ থানার মামলা নং-৩৭/১৭, জি আর নং-১৮৯ । মামলা নং ১২/১৫; জিআর নং-১৮৩। মামলা নং ৮/১৪; জি আর নং-২৯৩। মামলা নং ২৪/১৪; জি আর নং-২৭৯, মামলা নং-২০/ ১৭, জি আর নং-৪১২। এছাড়াও বিএমপি’র বন্দর থানার মামলা নং-১২/১৫ ও মামলা নং-১১/১৫ এবং ভোলা’র চরফ্যাশন থানার মামলা নং-১৫/১৭,জিআর নং-১৬৫/১৭৯চর)। রিমান্ড কালে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতরা জানায় চরফ্যাশন উপজেলার আছলামপুর ইউনিয়নের আলীগাঁও গ্রামের মৃত আবুল বাসার তালুকদারের পুত্র মো.হেলাল উদ্দিনের সহযোগীতায় চরফ্যাশন উপজেলায় ডাকাতি করতে এসেছিলো তারা। হেলঅলকে গ্রেপ্তারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। স্থানীয়রা জানায় ঘটনার পর থেকে হেলাল এবং তার স্ত্রী পলাতক রয়েছে। তবে হেলালের বাসা পুলিশ তল্লাসি করে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত তালা ভাঙ্গার মেশিন , শাবল,জানালার গ্রীল কাটার যন্ত্র উদ্ধার করেছে।