ষড়যন্ত্রকারীদের ইতিহাস ক্ষমা করে না

ডেস্কঃ ভোলানিউজ.কম,
১৭জুলাই-২০১৭ইং সোমবার,
শেখ হাসিনার কারাবরণ : গণতন্ত্র ও ষড়যন্ত্র বিষয়ক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, ষড়যন্ত্রকারীদের ইতিহাস কখনও ক্ষমা করেনি। ওয়ান ইলেভেনের ষড়যন্ত্রকারীদেরও ইতিহাস ক্ষমা করবে না। গতকাল রবিবার বিকালে প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত ঐ আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। দায়িত্বশীল গণতন্ত্রের জন্য নাগরিকের ব্যানারে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেছেন, ওয়ান ইলেভেনে শেখ হাসিনাকে গ্রেফতারের জন্য সব থেকে কারা বেশি ভূমিকা রেখেছিল তা সবাই জানেন। প্রধানমন্ত্রী সেসব ষড়যন্ত্রকারীদের ক্ষমা করে দিয়েছেন। কিন্তু ইতিহাস তাদের ক্ষমা করবে না। তিনি বলেন, তারা ওই সময়ের সেনা সমর্থিত সরকারকে সব থেকে বেশি চাপ দিয়েছে। তারা তাদের বলেছিল শেখ হাসিনাকে গ্রেফতার না করতে পারলে আপনারা যেটা চাচ্ছেন আমরা সেটা করতে পারবো না। এই জিনিসগুলো একটা সময় আরও বস্তুনিষ্ঠভাবে উঠে আসবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলে,ন অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, ড. আশিকুর রহমান শান্ত। এছাড়া অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সাংবাদিক মোজাম্মেল হক বাবু,  দৈনিক মানবকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক আনিস আলমগীর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাদেকা হালিম, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাবান মাহমুদ,  সাংবাদিক অঞ্জন রায়, শেরে বাংলার দৌহিত্র ফয়জুল হক রাজু প্রমুখ। ড. আশিকুর রহমান অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।

শ্যামল দত্ত বলেন, বাংলাদেশে একটি সুশীল সমাজ রয়েছে। তাদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক লবিং রয়েছে। তারা মনে করে বাংলাদেশের গণতন্ত্র যেহেতু ভঙ্গুর সেহেতু এখানে উন্নতি করতে হলে রাজনীতি দিয়ে হবে না, নন-রাজনৈতিক ফোরাম লাগবে। ওয়ান ইলেভেন তথা শেখ হাসিনাকে গ্রেফতার ছিল তারই একটি অংশ।

মোজাম্মেল হক বাবু বলেন, ওয়ান ইলেভেনে আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতা ষড়যন্ত্র করেছিল।  এটা ছিল প্রধানমন্ত্রীকে রাজনৈতিকভাবে হত্যার চেষ্টা। তিনি আরও বলেন, সেসময় খালেদা অলরেডি মাইনাস ছিল। সুতরাং ওয়ান ইলেভেন ছিল মাইনাস ওয়ান তথা শেখ হাসিনাকে মাইনাস করার ষড়যন্ত্র।

আনিস আলমগীর বলেন, ওয়ান ইলেভেনের সময় রাজনৈতিক নেতা, মিডিয়া কে কোথায় ছিল দেখেছি। কিন্তু সকল ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে প্রধানমন্ত্রী ফিরে আসেন। তার ফিরে আসার মধ্য দিয়ে গণতন্ত্র ফিরে আসে।

সাদেকা হালিম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকালে আমি গণতন্ত্র, নারীর ক্ষমতায়ন, আদিবাসী ও প্রান্তিক মানুষের বন্ধু দেখতে পাই। যেটা দলের অনেক মন্ত্রীর মধ্যে নেই।

সাবান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। বাংলাদেশ এগিয়ে নেওয়ার জন্য শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। প্রধান অতিথির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, বাংলাদেশের জন্ম লগ্ন থেকে ষড়যন্ত্র ছিল এখনো রয়েছে ভবিষ্যতেও থাকবে। সকল ষড়যন্ত্র অনুসন্ধান করলে আন্তর্জাতিক যোগসূত্রতা বেরিয়ে আসবে। এসময় তিনি বলেন, সকল ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।