আলোচনা সমালোচনার ১বছরে ভোলার পুলিশ সুপার

মঞ্জুরুল ইসলাম,

ভোলানিউজ.কম,

১৩জুলাই-২০১৭ইং বৃহস্পতিবার,

ভোলার পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন ভোলায় এসেছেন ১বছর হয়ে গেলো। আর এ ১বছরে তিনি অনেক কিছু নিয়ে যেমন আলোচিত হয়েছেন আবার কিছু ব্যাপার নিয়ে সমালোচিত হয়েছেন।

পুলিশ সুপার ভোলায় এমন একটি সময় যোগদান করেছেন যখন আওয়ামীলীগ এর ভোলার অভ্যন্তরীণ নেতৃত্ব নিয়ে চলছিলো নানা টানা-পড়েন। এ অবস্থায় তিনি যোগদানের পর দক্ষতার সহিত কোন প্রকার শক্তি প্রয়োগ ছাড়াই যেমন করে জেলার আইন শৃংঙ্খলার পরিস্থিতি ঠিক রাখতে ওই অভ্যন্তরীণ দন্দকে পর্দার আড়াঁলে রেখেই শেষ করেছেন অত্যন্ত সু-চতুরভাবে। সারা দেশের মানুষ যখন জঙ্গি তৎপরতা নিয়ে ভীত সন্ত্রস্থ এমনি এক ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে তিনি যোগদান করেন ভোলায়। যোগদানের সাথে সাথে সকল পেশা ও সংগঠনের মানুষের সাথে তিনি ভিন্ন ভিন্ন মতবিনিময়ের মাধ্যমে সকলকে ভয়ের উর্ধ্বে থেকে জঙ্গি মোকাবেলার আশ্বাস প্রদান করেন। আশ্বাসের সাথে সাথে তিনি ভোলার সকল আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর সমন¦য়ে কার্যকরি পদক্ষেপ এর মাধ্যমে জঙ্গিবাদসহ সকল সন্ত্রাসের মূলউৎপাটন করে ভোলাকে পরিনত করেন ভোলা শান্তির জেলায়। ভোলায় যোগদানের পর পুলিশ সুপার মাদক নিয়ন্ত্রণকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে তাতে কিছুটা সফল হয়ে মাদককে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলেও এখন পযর্ন্ত মাদক নির্মূলের চ্যালেঞ্জে সফল হতে পারেনি। জলদূস্য নিয়ন্ত্রণ, ভোলা দৌলতখানের মেঘনা নদীতে চোরাই পণ্য খালাস পুলিশ সুপারের বিশেষ অভিযানে নিয়ন্ত্রণে থাকলেও মাঝে মধ্যে দায়িত্বে থাকা অন্য আইন-শৃংঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দায়িত্বহীনতার জন্য অপরাধ দমন পুরোপুরি সম্ভব হয়ে উঠছেনা। পুলিশ সুপার ভোলায় যোগদানের পর সারা ভোলার অপরাধ নিয়ন্ত্রণ করতে পারলেও লালমোহনের ওসি হুমায়ন কবীরের সরাসরি ব্যর্থতার জন্য দুই মাসে ২০ এর অধিক খুনের কারনে পুলিশ সুপারের সকল অর্জন প্রশ্নের মূখে পরে। ভোলার মানাবাধিকার কর্মী, সমাজ সচেতন নাগরিক ও সুশিল সমাজের অভিযোগ, ভোলার লালমোহনের ওসি হুমায়ন কবীরের কর্মকান্ডের জন্য পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন এক বছরে যতটা প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন তা পুরো জেলার সকল অর্জনে কোথায়ও এতোটা বেগ পেতে হয়নি। আজ তার বছরপূর্তিতে সকাল থেকে তার কার্যলয়ে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছেন নানা শ্রেণী পেশার মানুষ। এসময় পুলিশ সুপারের ১ বছরের সফলতা তুলে ধরা হয় দাপ্তরিকভাবে, ভোলায় গত এক বছরে মাদক বিরোধী অভিযানে ৬২৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসময় এদের কাছ থেকে ১৪ হাজার ৮শ’ ৪৬ পিচ ইয়াবা ও ৩০ কেজি ৯শ’ ৪৫ গ্রাম গাজা উদ্ধার করা হয়। যা গত বছরের তুলনায় ১৪গুন বেশী। এছাড়া আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোলার পুলিশ সুপার তার দায়িত্ব ভার গ্রহনের এক বছরপূর্তিতে জেলা পুলিশ কর্তৃক আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। সংবর্ধনায় পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন বলেন, ভোলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ আগের চেয়ে অনেক বেশ শক্তিশালী হওয়ায় দিন দিন অপরাধের মাত্রা কমে যাচ্ছে। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, জ্বিনের বাদশা, জলদস্যু দমনে পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে।


অনুষ্ঠানে ভোলার সকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্ত (ওসি)সহ পুলিশের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান এবং কেক কেটে এক বছরপূর্তি পালন করেন তারা।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভোলা জেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম, ভোলা প্রেসক্লাব সভাপতি এম হাবিবুর রহমান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যক্ষ আফসার উদ্দিন বাবুল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফউদ্দিন শাহীন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (লালামোহন সার্কেল) মো. রফিকুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সাব্বির হোসেন, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর খায়রুল কবিরসহ জেলার নয় থানার অফিসার্স ইনচার্জ।
সকল আলোচনা সমালোচনার মধ্যেও ভোলাকে মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত করতে ভোলার সাংবাদিকসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে যোগদানের পর থেকে নিয়মিত মতবিনিময়সহ সকল প্রয়াস চালিয়েছেন আমাদের প্রতিবেশী ভোলার পুলিশের এই কর্তা ব্যক্তি।যার অক্লান্ত পরিশ্রমে আমাদের ভোলা পরিনত হয়েছে শান্তির শহরে। তার একবছর পূর্তিতে ভোলানিউজ.কম পরিবারের শুভেচ্ছা ও আগামির পথচলায় সফলতার প্রত্যাশা।