লালমোহন ‘শ্রমিকলীগ নেতা জাকিরের অত্যচারে অতিষ্ঠ বাস চালকরা’ অর্নিদৃষ্টকালের ধর্মঘাট, ভোগান্তির শিকার যাত্রীরা।

আল-আমিন এম তাওহীদ,

ভোলানিউজ.কম,

১২জুলাই-২০১৭ইং বুধবার,
ভোলা জেলার লালমোহন উপজেলার শ্রমিকলীগের সভাপতি জাকির পাঞ্চায়েত এর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে ভোলা জেলা বাস চালকরা বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে এ ঘটনায় অর্নিদৃষ্টকালের জন্য ধর্মঘাট ঘোষনা দিয়েছেন ভোলা জেলা বাস মালিক সমিতি ও বাস ও মিনিবাস মালিক শ্রমিক ইউনিয়ন।

জানা যায়, বুধবার ১২ জুলাই, সকাল ১১ টার দিকে ভোলা টু চরফ্যাশন-গামী মির্জাকালু পরিবহন (১২৭) নং বাসটি লালমোহন ফরাজীর বাজার পৌছালে ব্যাটারী চালিত বোরাকের সাথে একটু ধাক্কা লাগে বলে জানা যায়। এঘটনায় লালমোহন ব্যাটারী চালিত বোরাক সমিতির সভাপতি ও শ্রমিকলীগ এর লালমোহন উপজেলার সভাপতি জাকির পঞ্চায়েত এর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাস বাহিনী ক্ষিপ্ত হয়ে ওই পরিবহনের বাস চালক মোঃ মামুনকে যাত্রীবাহি বাসটি থেকে নামিয়ে বেধরক পিঠিয়ে গুরুতর আহত করে। লালমোহন থানা পুলিশ মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে লালমোহন উপজেলা হাসপাতালে পাঠায়। সেখান থেকে আশংঙ্খাজনক ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এঘটনায় ভোলা জেলা বাস মালিক সমিতি ও বাস ও মিনিবাস মালিক শ্রমিক ইউনিয়ন তীব্র নিন্দা জানিয়ে অর্নিদৃষ্টকালে ধর্মঘাট ঘোষনা করেন।


এবিষয়ে ভোলা জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, বুধবার সকাল ১১টায় ভোলা টু চরফ্যাশনগামী মির্জাকালু ১২৭ পরিবহনটি লালমোহন ফরাজী বাজার পযর্ন্ত পৌছালে একটু ব্যাটারি চালিত বোরাকের সাথে ধাক্কা লাঘে। এতে কোন বোরাকের ক্ষতি হয়নি। লালমোহন ব্যাটারী চালিত বোরাক সমিতির সভাপতি ও লালমোহন উপজেলা শ্রমিকলীগ এর সভাপতি জাকির পাঞ্চায়েত ক্ষিপ্ত হয়ে ওই বাসের ড্রাইভারের উপর অর্তকিত সন্ত্রাসী হামলা গুরুতর আ্হত করে। এ জাকির পাঞ্চায়েত বিভিন্ন সময় যাত্রীবাহি গাড়ি থামিয়ে চাঁদা দাবী করে। তাকে চাঁদা না দেয়ায় প্রতিনিয়ত বাস চালকদেরকে অত্যাচার করে আসছে। রোডে বাস চলতে দিবে না। বিভিন্ন সময়ে হুমকি দামকি দিচ্ছি। এমনকি সাধারণ রেন্ট একার পযর্ন্ত তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে। এঘটনায় আমরা জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক শ্রমিক ইউনিয়ন অর্নিদৃষ্টকালের জন্য ধর্মঘাট ঘোষনা করেছি এবং তার পাশাপাশি এই চাঁদাবাজ সন্ত্রাস জাকির পাঞ্চায়েত এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।


এবিষয়ে, ভোলা জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক খাজাঁ মহিউদ্দিন আহম্মেদ শাকিল জানান, অনেক আগে থেকে জাকির পাঞ্চায়েত বাস চালকদেরকে অত্যচার করে আসছে। তার এই অপকর্মের কারনে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে সাধারণ মানুষ ও বাস চালকরা। তিনি প্রতিনিয়ত যাত্রীবাহী বাস থামিয়ে চাঁদা তুলেন। তাকে চাঁদা না দিয়ে নেমে আসে বাস চালকদের উপর ভয়ংকার হামলা। আমরা সুষ্ঠ বিচারে দাবী জানাচ্ছি এবং দ্রুত জাকির পাঞ্চায়েতকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবী জানাচ্ছি।
এবিষয়ে, জাকির পাঞ্চায়েত এর সাথে তার ব্যবহৃত মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, এঘটনা আমি জানি না। হয়তো আমার শ্রমিকেরা অনেক তারা এসব হামলা করতে পারে। মির্জাকালু পরিবহনটি বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে এসে ফরাজী বাজার নামকস্থানে একটি ব্যাটারী চালিত বোরাকের সাথে মেরে দেয়। এতে বোরাকটি ভেঙ্গে চুরে যায়।
এদিকে, বাস চালকদের ধর্মঘাট থাকায় দুরপাল্লার যাত্রীরা চরম ভোগান্তির শিকার পেহাতে হচ্ছে।
এঘটনায় ভোলা জেলা বাস মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম (সফি) তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন এবং জাকির পাঞ্চায়েত এর দ্রুত বিচারের দাবী জানান।
সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ঘোটনাস্থলে পুলিশ প্রশাসন রয়েছে।