বাড়ছে আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকা ‘অশিক্ষিত লোক দিয়েই চলছে কার্যক্রম’ কার্ড বিক্রির মহাউৎসব,

আল-আমিন এম তাওহীদ,

ভোলানিউজ.কম,

২৭জুন-২০১৭ইং মঙ্গলবার,

সাংবাদিক পেশাটি অত্যন্ত সম্মানজনক পেশা। বাংলার ইতিহাসের আরেক নাম সাংবাদিকতা।সাংবাদিক হলো জাতিরে বিবেক, সাংবাদিক পেশাটি একটি মহৎ পেশা। দেশের সকল শ্রেনীর পেশার মানুষ ও অসহায় মানুষের কথা তুলে ধরাই সাংবাদিকতার একটি মূল লক্ষ্য।আজ বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র বিশ্বের বুকে তুলে ধরছেন একজাঁক সাহসী সাংবাদিক ও সরকারি তালিকা ভুক্ত প্রিন্ট ইলেকট্রনিক মিডিয়া।

দেশের তাৎক্ষনিক ঘটে যাওয়া তথ্যটি সমগ্র বিশ্বের মানুষের নিকট পৌছে দেয় সাংবাদিক ভাইরা। নিজের জীবনকে মৃত্যুর সাথে বাঁজি রেখে চলছে তাদের পথচলা। প্রতিনিয়ত হুমকির মোকাবেলা করে চলছে তাদের সংবাদ প্রচার।

এতো সুন্দর একটি কার্যক্রম দিন দিন বিন্ষ্ট হতে চলছে, তার কারন একটা্ই কিছু দেশে আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকার কুফল দক্ষতা আর আইডি কার্ড এর বানিজ্য।এমনকি এসকল পত্রিকার একজন সম্পাদকের শিক্ষাগত যোগ্যতা হলো এস.এস.সি পাশ, এবং কেউ হলো রিক্সার ইঞ্জিনিয়ার। সার্ট প্যান্ট কোর্ট, টাই পড়েই হচ্ছে সম্পাদক!!!!!!!!!!!!!!। এদের কারনে আজ দেশবাসি জিম্মির মুলে তোলপাড়।

একটি পত্রিকা খুলেই চলছে কার্ড বিক্রির মহাউৎসব। শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকুক আর নাই থাকুক। টাকা দিলেই মিলছে পরিচয় আইডি কার্ড।যাহার প্রতিটি কার্ড এর মূল্য মাত্র ৫হাজার, ৩হাজার, ২হাজার, বেতন ভাতা বিহীন।উল্ট এসকল পত্রিকার মালিকগনকে দিতে হয় প্রতি মাসে মাসহারা।

গোপন সূত্রে জানা যায়, ভোলা চরফ্যাশন উপজেলা স্কুল পড়ুয়া ৯ম শ্রেনীর ছাত্রের হাতে দেখা যায় এসকল পত্রিকার আইডি কার্ড।এই ভুয়া পত্রিকার কার্ড দিয়েই চলছে সাংবাদিক পরিচয়। চলছে মাদক বিক্রি, চলছে ইভটিজিং, চলছে ব্যাপক চাদাঁবাজির মহাউৎসব।তার পাশাপশি তাদের ব্যবহারকৃত মটর সাইকেল গুলোতেও দেখা যায় প্রেস স্টিকার লাগানো। ভয়ে আটক ধরছে পুলিশ প্রশাসন।এর ফলে প্রতিনিয়ত হয়রানির শিকার হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষ।তাদের হুমকির মূখে জিম্মি হতে হচ্ছে সকল শ্রেণীর পেশার মানুষ।দিন দিন মানসম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে পেশাদার সৎ সাহসি সাংবাদিক ভাইদের ও সরকারি তালিকাভুক্ত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া ব্যক্তিদের।

আর বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল ও প্রেস ক্লাবের আইন, নিয়মনীতি তোয়াক্কা করেই চলছে এসকল ভুয়া পত্রিকার মালিকদের কর্মকান্ড।বেতন তো দুরের কথা, তাদের ব্যবহারকৃত ‍বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠিয়ে দিলেই চলে সকল সুযোগ সুবিধা ও কার্ড।

আশা করি, দেশের পেশাদার সৎ সাহসি সাংবাদিক ভাইদের সফলতায় এবং উধ্বর্তন প্রশাসনের কর্তৃপক্ষ বিয়ষটি বিবেচনা করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলেও আশা করেন সাধারণ মানুষ।