ইলিশ সংরক্ষণে আত্মপ্রত্যয়ী এক নারীর গল্প

বিশেষ প্রতিনিধি সোহেল মাহমুদ,

ভোলানিউজ.কম,

০৮-০৪-২০১৭ইং শনিবার,

মনোয়ারা বেগম  ভোলা জেলার তজুমুদ্দিন উপজেলার হাজীকান্দি গ্রামের একটি ইলিশ সংরক্ষণ দলের সভাপতি। ভোলা জেলায় তিনিই একমাত্র মহিলা যিনি সভাপতি হিসেবে একটি ইলিশ সংরক্ষণ দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন । নাগর মাঝি, তোতা মাঝির মত দলের পুরুষ সদস্যদের সাথে নিয়ে তিনি গত প্রায় তিন বছর ধরে হাজীকান্দি গ্রামের জেলেদের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছেন ।

মনোয়ারা ইউএসএআইডি’র (#USAID) অর্থায়নে এবং মৎস্য অধিদপ্তর ও ওয়ার্ল্ডফিশের (#WorldFish) সহায়তায় কোস্ট ট্রাস্ট এর বাস্তবায়নাধীন ইকোফিশ প্রকল্লের তত্ত্বাবধানে ইলিশ সংরক্ষণ দলের নিয়মিত ও ধারাবাহিক সভা আয়োজন করেন । এমনকি গত বর্ষায় যখন বাঁধ ভেঙ্গে হাজীকান্দি গ্রাম মেঘনার পানিতে প্রায় তলিয়ে গিয়েছিলো, তখনো দলের সদস্যদের সাথে নিয়ে মনোয়ারা জেলেদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বুঝিয়েছিলেন সরকার ঘোষিত মাছ ধরার নিষিদ্ধ সময়ে নদীতে মাছ ধরতে না গেলে কি লাভ হবে । বার বার জেলেদের বুঝিয়ে অনুরোধ করেছিলেন মৎস্য আইন মেনে চলতে জেলেরা তার কথা রেখেছে । তার সুফলও পেয়েছে । দেশে গত ইলিশের মৌসুমে এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ইলিশ উৎপাদন হয়েছে ।

মাছ ধরার নিষিদ্ধ সময়ে জাটকা ও ডিমওয়ালা মা মাছ না ধরা ও রক্ষা করতে পারা এ বিরাট সাফল্যের অন্যতম কারণ । এ ধারা অব্যাহত রাখতে পারলে দারিদ্র্যক্লিষ্ট জেলেদের সংসারে সুদিন ফিরে আসবে । ইলিশ দেশের অর্থনীতিতে আরও বড় অবদান রাখতে পারবে । এভাবে মনোয়ারার মত আরও অনেক নারী ইলিশ সংরক্ষণে পুরুষের পাশাপাশি বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখে চলেছেন । মনোয়ারা বেগমের ছবিটি তুলেছেন মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান ।