ছায়ামন্ত্রীর পদ ত্যাগ করলেন টিউলিপ সিদ্দিক

50942_naz-4

অন-লাইন ডেস্ক,ভোলা নিউজ ডট কম: বৃটেনের বিরোধী দল লেবার পার্টির ছায়ামন্ত্রীর পদ ত্যাগ করলেন টিউলিপ সিদ্দিক। বঙ্গবন্ধুর নাতনি ও বৃটিশ এমপি টিউলিপ নিজের দলের নেতা জেরেমি করবিনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এই পদত্যাগ করলেন। করবিন লেবার দলের এমপিদেরকে গণভোটের ফল অনুযায়ী ইইউ থেকে বৃটেনের প্রস্থান বা ব্রেক্সিটের পক্ষে ভোট দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। এ খবর দিয়েছে গার্ডিয়ান।
করবিনের কাছে লেখা চিঠিতে টিউলিপ বলেন, ইইউ থেকে বৃটেনের প্রস্থানের প্রক্রিয়া শুরুর পক্ষে ভোট দিলে, তা হবে নিজ সংসদীয় আসনের জনগণের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা। টিউলিপের নির্বাচনী এলাকা উত্তর লন্ডনের হ্যা¤পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নের ভোটারদের তিন-চতুর্থাংশই ইইউতে রয়ে যাওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। যদিও বৃটেনজুড়ে বেশিরভাগ মানুষ প্রস্থানের পক্ষে ভোট দিয়েছেন।
নিজের পদত্যাগপত্র টিউলিপ লিখেন, ‘আমি সবসমই ¯পষ্ট ছিলাম যে, আমি হ্যা¤পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নে পার্লামেন্টের প্রতিনিধিত্ব করি না। বরং পার্লামেন্টে হ্যা¤পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নের প্রতিনিধিত্ব করি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি মনে করি আমার জন্য (প্রধানমন্ত্রী) তেরেসা মের কঠোর ব্রেক্সিট মোকাবিলার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হলো পেছনের সারিতে থাকা।’
প্রসঙ্গত, ব্রেক্সিটের পক্ষে ভোট দিতে থ্রি-লাইন হুইপ বা কঠোর নির্দেশনা জারি করা হয়েছিল লেবার এমপিদের প্রতি। তবে লেবার নেতা করবিন স্বীকার করেন, কিছু এমপির জন্য এটি পালন করা কঠিন হবে। কারণ, লেবার দলের অনেক এমপির নির্বাচনী এলাকার জনগণ কঠোরভাবে ব্রেক্সিটের পক্ষে ভোট দিয়েছেন, আবার কিছু এলাকার লোকজন কঠোরভাবে বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন। ফলে লেবার দলের সাধারণ অবস্থানে আসা কঠিন।
২০১৫ সালের মে মাসে প্রথম পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হন টিউলিপ সিদ্দিক। তবে সেপ্টেম্বরে করবিন লেবার নেতা পুনর্নিবাচিত হওয়ার পর তাকে ছায়ামন্ত্রী করে সামনের সারিতে নিয়ে আসেন। টিউলিপ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বোন শেখ রেহানার মেয়ে।