ভোলায় অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে বাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

vlcsnap-2016-08-17-21h02m45s25

এইচ এম জাকির, ভোলা নিউজ ডেস্ক:  বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপ ও পূর্ণিমার প্রভাবে ভোলায় নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। দৌলতখান পয়েন্টে মেঘনার পানি বিপদ সীমার ৪১ সেন্টিমিটার ও ভোলা শহরের খেয়াঘাট পয়েন্টে জাঙ্গালিয়া নদীর পানি ২২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে  জেলার নিন্মাঞ্চল ৩ থেকে ৪ ফুট পানিতে তলিয়ে গেছে। মনপুরায় ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধ দিয়ে পানি ডুকে ৩০ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
এছাড়া বুধবার বিকেল ৪ টার দিকে সদর উপজেলার ইলিশা ইউনিয়নের ব্যারিস্টারের কাচারি এলাকায় ৩০ মিটার বাঁধ ভেঙ্গে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। নতুন নতুন এলাকায় যাতে পানি প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড জরুরি ভিত্তিতে পানির চাপে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধের সংস্কার কাজ করছে। স্থানীয় প্রশাসন ও আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এ সময় জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব বলেন, ভোলার বাসীকে মেঘনার ভাঙ্গনের কবল থেকে মুক্ত রাখতে আমাদের চেষ্টার কোন ত্রুটি থাকবে না। যতদিন বেচে আছি মানুষের বিপদে পাশে এসে দাড়াবো। আমরা আশা করছি এ বর্ষার চাপটি কোন ভাবে সামাল দিয়ে উঠতে পারলে আগামী শুস্ক মৌসুমে সিসি ব্লকের মাধ্যমে স্থায়ী বাধ নির্মান করে ভোলা বাসীকে মেঘনার ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা করতে পারবো ইনশাআল্লাহ। এদিকে ভোলার মেঘনাসহ বিভিন্ন নদ-নদী উত্তাল থাকায় লঞ্চ যোগাযোগ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। ৬৫ ফুটের নিচের নৌ-যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।